আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন।

কুমারখালী NEWS24
ঢাকাTuesday , 21 July 2020
  1. bbpeoplemeet-inceleme visitors
  2. bbwdatefinder-inceleme visitors
  3. DAF visitors
  4. Flirt review
  5. Herpes Dating dating
  6. herpes dating review
  7. herpes-chat-rooms review
  8. herpes-dating-de visitors
  9. Hervey Bay+Australia hookup sites
  10. Heterosexual cute date ideas
  11. Heterosexual dating beoordeling
  12. Heterosexual dating i migliori siti per single
  13. heterosexual dating reviews
  14. Heterosexual dating reviews
  15. Heterosexual dating visitors

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন।

আজকের সর্বশেষ সবখবর

অভিযোগের প্রেক্ষিতে কুষ্টিয়া রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদীর তদন্ত শুরু

admin
July 21, 2020 3:46 pm
Link Copied!

কে এম শাহীন রেজা কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি।।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ইবি থানার রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী জলমহাল ১৪২৭ বাংলা সনের জন্য “রাধানগর ছয়ঘড়িয়া মরানদী মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি লিঃ” টেন্ডারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ মূল্যে পরিশোধ সাপেক্ষে ইজারা পেলেও উক্ত সমিতি জলাকার ব্যবহার করতে পারছে না। কারণ অন্য আরেকটি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির অভিযোগের ভিত্তিতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদন্ত শুরু হয়েছে। জানা গেছে, অভিযোগকারি মৎস্যজীবি সমিতির অসঙ্গতি ও কার্যনির্বাহী কমিটি গঠনসহ সমিতিতে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বহিস্কার চায় মর্মে সমিতির সদস্যরা কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা, কুষ্টিয়া সদর, কুষ্টিয়া ও জেলা মৎস্য কর্মকর্তা, কুষ্টিয়া এর নিকট লিখিত অভিযোগ দেন।

উক্ত অভিযোগে উল্লেখ করেন, রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সদস্য, আমাদের সমবায় সমিতি ২৪জন সদস্য নিয়ে গঠিত। সমবায় সমিতি লিঃ এর ৫ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটি বিদ্যমান। কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সব সময় তাদের নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য কাজ করে থাকে। সমবায় সমিতির অন্য সদস্যদের কোন মতামত তারা গ্রহণ করে না। সমবায় সমিতির কোন কার্যসভা তারা করে না।

আলাপ আলোচনা ও মতামত গ্রহণ ছাড়াই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো বন্টন করে থাকে। নামমাত্র কয়েকজন ছাড়া সমবায় সমিতির সকল সদস্য সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয় আসছে। সভাপতি রেজাউল ইসলাম, পিতা লিয়াকত আলী এর বাড়ি ঝিনাইদহ জেলার হরিনাকুন্ডু উপজেলার ভায়েনা ইউনিয়নের তেলটুপি গ্রামে। অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক সোহেল হোসেন, পিতা-আলহাজ্ব আজিবুর রহমান এর বাড়ি কুষ্টিয়া জেলার সদর থানার জিয়ারখী ইউনিয়নের বালিয়পাড়া গ্রামে। রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি লিঃ এর নিয়ম অনুসারে মনোহরদিয়া এবং ঝাউদিয়া ইউনিয়ন ব্যতিত অন্য ইউনিয়নের কোন ব্যক্তি এই সমিতির সদস্য হিসাবে অন্তর্ভূক্ত হতে পারবে না। কিন্তু এই সমবায় সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির প্রধান ২জন সদস্য বহিরাগত। যা সমবায় সমিতির লংঘনের সামিল। এ নিয়ে সমবায় সমিতির সাধারণ সদস্যদের মধ্যে ক্ষোভে সৃষ্টি হয়েছে। যা পরবর্তীতে মারামারি, কোন্দলের রুপ নিতে পারে।

তাই রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের অবৈধ অনুপ্রবেশকারী সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বহিস্কারসহ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো যাহাতে পূনরায় সকলের মতামত ও আলোচনা ভিত্তিতে পুর্নগঠিত হয় সেই ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিত আবেদন জানায়। এরই প্রেক্ষিতে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্য কুষ্টিয়া জেলার মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান তালুকদার, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সবুজ হাসান ও জেলা সমাজসেবা অফিসের সহকারী পরিচালক মুরাদ হোসেন সোমবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে কমিটির তিনজন কর্মকর্তা তদন্ত করেছেন। তদন্ত কমিটি তদন্তে যান রাধানগর, বলরামপুর ও চরপাড়াগ্রামে। এ সময় তদন্ত কমিটি সমবায় সমিতির সকল সদস্যের কথা শোনেন। কুষ্টিয়া জেলার মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান তালুকদার বলেন, আমরা সরেজমিনে ঘুরেছি। সমিতির সদস্য ও এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলেছি।

নিয়ম-নীতি অনুসারে তাদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র অফিসে জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। দ্রুত সময়ের মধ্যেই তদন্ত প্রতিবেদন জেলা প্রশাসকের কাছে জমা দেওয়া হবে। তিনি সকল সিদ্ধান্ত নিবেন। অপর একটি সূত্র জানায়, হরিনাকুন্ডু উপজেলার ১নং ভায়না ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছমিরুদ্দিন স্বাক্ষরিত নাগরিক ও চারিত্রিক সনদপত্রে উল্লেখ করা হয় রেজাউল ইসলাম, পিতা লিয়াকত আলী, মাতা নুরজাহান খাতুন, গ্রাম-তেলটুপি মোল্লাপাড়া, ডাকঘর-জোড়াদহ, উপজেলা-হরিনাকুন্ডু, জেলা-ঝিনাইদহ একজন বাসিন্দা রেজাউল। এদিকে কুষ্টিয়া জেলার সদর উপজেলার ১৩ নং মনোহরদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত প্রত্যয়নপত্রে জানা যায়, রেজাউল ইসলাম, পিতা লিয়াকত আলী, মাতা নুরজাহান খাতুন তিনি মনোহরদিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা নয়। আমার জানা মতে ইহা সত্য। মনোহরদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম বলেন, রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি রেজাউল ইসলাম ঝিনাইদহ জেলার হরিনাকুন্ডু উপজেলার ভায়না ইউনিয়নের তৈলটুপি গ্রামের বাসিন্দা এবং সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা কুষ্টিয়া সদর উপজেলার জিয়ারখী ইউনিয়নের বালিয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

কিন্তু রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মতস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের নিয়ম অনুসারে মনোহরদিয়া ও ঝাওদিয়া ইউনিয়ন ব্যতীত অন্য ইউনিয়নের কোন বাসিন্দা সমিতির সদস্য হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হতে পারবে না। কিন্তু ওই অভিযোগকারী সমবায় সমিতির মূল দুজন সদস্যই বহিরাগত। যা সমবায় সমিতির আইন লঙ্ঘনের শামিল। এমতাবস্থায় সমবায় সমিতির সাধারণ সদস্যদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। যা পরবর্তীতে মারামারি কোন্দলে রুপ নিতে পারে।

রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মতস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের অনিয়ম অসঙ্গতি ও কার্যনির্বাহী কমিটি পূঠন সহ সমিতিতে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বহিস্কার চায় এলাকাবাসী এবং রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সদস্যবৃন্দ। দ্রুত এ সমস্যার সমাধাণ না হলে মারামারি-কোন্দলে রুপ নিতে পারে। রাধানগর ছয়ঘরিয়া মরানদী মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন।